Blog

লৌহজংয়ে ভাষাসৈনিক আবদুর রহমান মাস্টারের কারাবরণ দিবস পালিত 24 Apr

লৌহজংয়ে ভাষাসৈনিক আবদুর রহমান মাস্টারের কারাবরণ দিবস পালিত

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

তারিখ :২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯।

লৌহজংয়ে ভাষাসৈনিক আবদুর রহমান মাস্টারের কারাবরণ দিবস পালিত

মুন্সীগঞ্জ-বিক্রমপুরের অন্যতম ভাষাসংগ্রামী আবদুর রহমান মাস্টারের ১৯৫২ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি কারাবরণ দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও বিভিন্ন বিষয়ে প্রতিযোগিতায় বিজয়ী  শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়েছে। রহমান মাস্টার স্মৃতি পাঠাগার ও অগ্রসর বিক্রমপুর ফাউন্ডেশন লৌহজং কেন্দ্রের যৌথ আয়োজনে ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ শনিবার বিকেলে কনকসার গ্রামে অবস্থিত ফাউন্ডেশনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের আবদুল জব্বার খান উন্মুক্ত মঞ্চে এ আলোচনা ও পুরস্কার বিতরণী সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে সভাপতিত্ব করেন রহমান স্মৃতি পাঠাগারের পরিচালনা পরিষদের সভাপতি কহিনুর বেগম এবং প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ভাষাসংগ্রামী আবদুর রহমান মাস্টারের সন্তান, অগ্রসর বিক্রমপুর ফাউন্ডেশনের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সাবেক সদস্য ড. নূহ-উল-আলম লেনিন।

১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারিতে রাষ্ট্রভাষা বাংলার দাবীতে আন্দোলনকারী রফিক, শফিক, বরকত, জব্বারসহ কয়েকজন ছাত্রের শহীদ হওয়ার প্রতিবাদে ২২ ফেব্রুয়ারি ১৯৫২ সনে লৌহজং এ ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে বিক্ষোভ মিছেলের নেতৃত্ব দেয়ার অভিযোগে লৌহজং থেকে আব্দুর রহমান মাস্টার, কংগ্রেস নেতা প্রশান্ত সেন এবং শ্রীনগর থেকে সাংবাদিক সফিউদ্দিন আহম্মেদসহ আরো অনেককে গ্রেফতার করা হয়।

 সভার শুরুতে ভাষাসৈনিক আবদুর রহমান মাস্টার সম্পর্কে প্রবন্ধ পাঠ করেন রহমান মাস্টারের বড় সন্তান মনোয়ার মাহবুব আলম দিদার। পাঠাগারের সাধারণ সম্পাদক পলাশ কুমার দের সঞ্চালনায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তৃতা দেন ফাউন্ডেশনের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি আবু হানিফ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক নজরুল ইসলাম খান হান্নান, লৌহজং কেন্দ্রের সহ-সভাপতি সবজল হোসেন শিকদার, সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, রহমান মাস্টার স্মৃতি পাঠাগার পরিচালনা পরিষদের সহ-সভাপতি   সাংবাদিক আরিফ সোহেলসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

ড. নূহ-উল-আলম লেনিন বলেন,আমাদের সন্তানদেরকে মাতৃভাষায় শিক্ষিত ও বিজ্ঞানমনস্ক করে গড়ে তুলতে হবে,তাহলেই ভাষাসংগ্রামীদের আন্দোলন সার্থক হবে। তিনি আগামীতে প্রতি বছর থেকে সমাজে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ আবদুর রহমান মাস্টার স্মৃতি পদক ও ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনের নায়ক জিতেন ঘোষ স্মৃতি পদক নামে প্রবর্তনের ঘোষণা দেন। আবদুর রহমান মাস্টার একজন আলোকবর্তিকা ও বাতিঘর ছিলেন এবং ভাষা আন্দোলনের কারণে তাঁর কারাবরণ দিবস পালন আরও আগেই করা উচিত ছিল বলে বক্তারা উল্লেখ করেন।

আলোচনা সভা শেষে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত শিক্ষামূলক বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় করা হয়। সুন্দর হাতের লেখা, বিক্রমপুর সম্পর্কে রচনা লেখা, চিত্রাঙ্কন ও কবিতা আবৃত্তি বিষয়ে প্রতিযোগিতায় লৌহজং উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিজয়ী ৪২ জন শিক্ষার্থীর মাঝে পুরস্কার হিসেবে বই বিতরণ করা হয়।

ধন্যবাদান্তে

(নাছির উদ্দিন আহমেদ)

দপ্তর সম্পাদক (কেন্দ্রীয় পর্ষদ)

অগ্রসর বিক্রমপুর ফাউন্ডেশন

(e-mail ID.  nasirjewel64@gmail.com)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *